শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৮ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

১৪৯

তরুণীর গোপনাঙ্গ কর্তন, ভারতে বাংলাদেশি নারীর কারাদণ্ড

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

ভারতের মহারাষ্ট্রে ৪০ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি নারী পাচারকারীকে দশ বছরের জামিন অযোগ্য কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। চাকরির লোভ দেখিয়ে বাংলাদেশি এক তরুণীকে সেদেশে নিয়ে তার গোপনাঙ্গ কেটে ফেলা ও জোরপূর্বক দেহ ব্যবসা করতে বাধ্য করার অভিযোগে তাকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, মহারাষ্ট্রের থানে জেলার দায়রা জজ আদালতের বিচারক এস পি গন্ধালেকার পাঁচ বছর ধরে চলা মামলার চূড়ান্ত রায়ে ওই নারীকে দশ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। ভারতীয় দণ্ডবিধি ও দেশটির ১৯৫৬ সালের মানবপাচার আইনের ধারায় তার বিরুদ্ধে এ রায় দেন আদালত।

কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ওই নারীর নাম রুবি মুনশি। তিনি বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়েছেন। প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, আফজাল সিদ্দিকি ও রমাদেবী নামে তার দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে যথাযথ প্রমাণ না থাকায় তাদেরকে জামিন দিয়েছেন আদালত। তাছাড়া আলমগীর নামে ওই মামলার অভিযুক্ত অপর আসামি পলাতক রয়েছেন।

আদালতকে মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী উজ্জ্বলা মোহলকর বলেন, চাকরি দেয়ার কথা বলে ঘটনার শিকার ওই নারীকে বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসা হয়। তাকে ভারতে আনার পর চাকরির বদলে জোরপূর্বক পতিতাবৃত্তি করতে বাধ্য করেন তারা। কিন্তু ওই নারী তা করতে অস্বীকৃতি জানালে তার গোপনাঙ্গ কেটে নেন সহযোগীসহ কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ওই নারী।

আদালতের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত ওই আসাসিরা ঘটনার শিকার ওই তরুণীর দাঁত ভেঙে দেয় এবং শরীরের বিভিন্ন জায়গায় সিগারেটের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। আর এর প্রমাণ হিসেবে ওই নারীর শরীরে পোড়া দাগ দেখার কথাও জানান আদালত।

আজকের নড়াইল
আজকের নড়াইল