রোববার   ২০ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৫ ১৪২৬   ২০ সফর ১৪৪১

৭২৯৪

খালেদার পরে ড.কামাল ও মাইনাস!

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৮  

গুঞ্জন ছিলো আগেই, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন নির্বাচন করবেন না। মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ায় এবার সেই গুঞ্জন সত্যি হলো, তিনি নির্বাচন করছেন না। অনেকেই এটিকে নির্বাচান বানচালের ষড়যন্ত্র হিসাবেই দেখছে।

তার দল গণফোরাম বলছে, ড. কামাল হোসেন যে নির্বাচন করবেন না, সেটি আগেও অনেকবার তিনি বলেছেন। বয়স ও শারীরিক অবস্থার কারণেই মুলত: তিনি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না বলে জানান দলটির নেতারা।

ড. কামালের নির্বাচন না করার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, ‘কিছু পাওয়ার জন্য তিনি (ড. কামাল) রাজনীতি করেন না। নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত নিয়ে সেটি প্রমান করলেন তিনি। কামাল হোসেন ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নয়, দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতেই জাতীয় ঐক্য গড়েছেন।’

এর আগে দুপুরে ঢাকা ৬ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিতে এসে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতা সুব্রত চৌধুরী জানান ড. কামাল হোসেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন না।

তিনি বলেন, ‘উনি আমাদের নেতা। বয়স ও শারীরিক অবস্থার কারণে নির্বাচন করবেন না। এটা আগেই বলেছেন। তবে তিনি আমাদের নেতৃত্বে থাকবেন।’

নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়ে সুব্রত বলেন, ‘ইসির আচরণে মনে হচ্ছে তারা প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করতে যাচ্ছে। তারা ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচনের মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল। আমরা ঐক্যফ্রন্ট গঠনের মাধ্যমে নির্বাচনী জোয়ার তৈরি করেছি।’

এদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দলগুলো নিজেদের মতো করে প্রার্থীদের মনোনয়ন দিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। দু’একদিনের মধ্যেই জোটগতভাবে একক প্রার্থী দেওয়ার বিষয় চুড়ান্ত করবেন জোটের নেতারা।

আজকের নড়াইল
আজকের নড়াইল
এই বিভাগের আরো খবর